কৃষ্ণ কুমার দিনেশ কার্তিক ভারত জাতীয় ক্রিকেট দলের অন্যতম ব্যাটসম্যান কার্তিক উইকেট-রক্ষকেরও দায়িত্ব পালন করে থাকেন। ডানহাতে ব্যাটিংয়ের পাশাপাশি ডানহাতে অফ ব্রেক বোলিংয়েও পারদর্শী তিনি। দলের নিয়মিত সদস্য হিসেবে টেস্ট ম্যাচ, একদিনের আন্তর্জাতিক ও টুয়েন্টি২০ আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলছেন।আগস্ট, ২০০৪ সালে ভারতের একদিনের দলের সদস্যরূপে মনোনীত হন দিনেশ কার্তিক।

কৃষ্ণ কুমার দিনেশ কার্তিক গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ঃ-কৃষ্ণ কুমার দিনেশ কার্তিক (জন্ম: ১ জুন, ১৯৮৫) তামিলনাড়ু প্রদেশের চেন্নাইয়ে জন্মগ্রহণকারী।
রবিবার ইংল্যান্ড-শ্রীলঙ্কা চলতি ওয়ানডে সিরিজের শেষ ও তৃতীয় ওয়ানডে চলাকালীন কার্তিক বলেন, “গত ম্যাচে যা ঘটেছে তার জন্য আমি সকলের কাছে ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছি। আসলে আমি ওই অর্থে কথাটা বলতে চাইনি। এটা একদমই বলা ঠিক হয়নি। এর জন্য মা ও স্ত্রীর কাছে বকুনি খেয়েছি আমি ব্যাট অনেকটা প্রতিবেশীর স্ত্রী-র মতো! অন্যেরটা সবসময় ভাল লাগে।” ইংল্যান্ড-শ্রীলঙ্কা দ্বিতীয় ওয়ানডে চলাকালীন কমেন্ট্রি বক্সে এই ‘সরস’ মন্তব্য করার জন্য বিতর্কে জড়িয়েছেন ভারতের সিনিয়র উইকেটকিপার-ব্যাটসম্যান দীনেশ কার্তিক বার এহেন মন্তব্যের জন্য প্রকাশ্যে ক্ষমা চাইলেন কার্তিক।

রাহুল দ্রাবিড়কে বিকল্প উইকেট-রক্ষকের দায়িত্ব থেকে দূরে সরিয়ে রাখলে এবং অন্যতম উইকেট-রক্ষক পার্থিব প্যাটেলের দূর্বল ক্রীড়াশৈলী প্রদর্শনই এর প্রধান কারণ।ইংল্যান্ডের তৎকালীন অধিনায়ক মাইকেল ভনকে অনিল কুম্বলের বোলিংয়ে ক্যাচ ধরতে না পারলেও পরবর্তীকালে লেগ সাইডে ভনকে স্টাম্পিং করেছিলেন ও আরও একটি ক্যাচ ধরেছিলেন।২০০৪ সালের আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি প্রতিযোগিতার একটি খেলায় কেনিয়া ক্রিকেট দলের বিপক্ষে তিনটি ক্যাচ ধরেছিলেন। তারপরও রাহুল দ্রাবিড়কে ইংল্যান্ড সফরের অধিকাংশ সময়ই উইকেট-রক্ষকের দায়িত্ব পালন করতে হয়েছিল।ব্যক্তিগত জীবনে বিবাহিত কার্তিক ২০০৭ সালে নিকিতা কার্তিকের সাথে বিবাহ-বন্ধনে আবদ্ধ হন। কিন্তু সতীর্থ খেলোয়াড়ের সাথে সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ার গুঞ্জনের ফলে তাদের মধ্যকার বৈবাহিক সম্পর্ক বিবাহ-বিচ্ছেদে রূপান্তরিত হয়। পরবর্তীতে নভেম্বর, ২০১৩ সালে তিনি ভারতীয় স্কোয়াশ খেলোয়াড় দীপিকা পল্লীকলকে বিয়ে করেন।সবচেয়ে কম বল খেলে ম্যাচসেরা হয়েছেন দিনেশ কার্তিক । আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে (বোলিং না করে) এর আগে সর্বনিম্ন ৮ বল খেলে ম্যাচসেরা হয়েছিলেন ব্র্যাড হজ। ২০১৪ সালে ডারবানে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ৮ বলে ২১ রান করেছিলেন অস্ট্রেলীয় ব্যাটসম্যান। কার্তিক ৮ বলে করেছেন ২৯। তিনটি ছক্কা মেরেছেন, দুটি চার। ২৬ রান এই ৫ বলেই! এর মধ্যে একটা ডট বলও খেলেছেন!