রামকিঙ্কর বেইজ (Ramkinkar Baij) (২৫ মে, ১৯০৬ – ২ অগস্ট, ১৯৮০) ছিলেন একজন ভারতীয় বাঙালি ভাস্কর। তিনি আধুনিক ভারতীয় ভাস্কর্যকলার অন্যতম অগ্রপথিক ছিলেন। রামকিঙ্কর ছিলেন প্রথম ভারতীয় শিল্পী যিনি আধুনিক পাশ্চাত্য শিল্প অধ্যয়ন করে সেই শৈলী নিজের ভাস্কর্যে প্রয়োগ করেন। তাকে ভারতীয় শিল্পে আধুনিকতার জনক ও অন্যতম শ্রেষ্ঠ শিল্পী মনে করা হয়।

রামকিঙ্কর বেইজ এর জীবনী

প্রখ্যাত ভাস্কর ও চিত্রকর রামকিঙ্কর বেইজ ১৯০৬ খ্রিস্টাব্দের ২৫ মে বাঁকুড়া জেলার যুগিপাড়ায় এক দরিদ্র নাপিত পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর পিতার নাম ছিল চণ্ডীচরণ বেইজ। ছোটোবেলা থেকেই তিনি পুতুল-গড়া, থিয়েটারের সিন বানানো, ছবি আঁকা ইত্যাদি কাজে যুক্ত ছিলেন। প্রবাসী পত্রিকার সম্পাদক রামানন্দ চট্টোপাধ্যায় তাঁর শিল্প প্রতিভার শান্তিনিকেতনে পরিচয় পেয়ে রামকিঙ্কর বেইজ ১৯২৫ খ্রিস্টাব্দে আসেন। সারাজীবন বহু ছবি এঁকেছেন, মূর্তিও গড়েছেন। ‘উৎসবী চোখ’, ‘শিলং সিরিজ’, ‘শরৎকাল’, ‘কৃষ্ণের জন্ম’, ‘নতুন শস্য’, ‘বিনোদিনী’, ‘মহিলা ও কুকুর’, ‘গ্রীষ্মের দুপুর’ প্রভৃতি ছবি উল্লেখযোগ্য। তাঁর গড়া যে-মূর্তিগুলি শান্তিনিকেতনে আছে, সেগুলির মধ্যে । কয়েকটি হল—“ ‘সুজাতা’, ‘বুদ্ধদেব’, ‘গান্ধিজি’, ‘হাটের সাঁওতাল পরিবার’, ‘কাজের শেষে সাঁওতাল রমণী’, ‘কালের পথে’ ইত্যাদি। ১৯৭০ খ্রিস্টাব্দে ও তিনি ‘পদ্মভূষণ’ এবং ১৯৭৬ খ্রিস্টাব্দে ‘দেশিকোত্তম’ উপাধিতে ভূষিত হন। ১৯৮০ খ্রিস্টাব্দে তাঁর জীবনাবসান হয়।

এটিও পড়ুন – অখিল নিয়োগী এর সংক্ষিপ্ত জীবনী