লালন ফকির (Fakir Lalon Shah) ছিলেন বহুমুখী প্রতিভার অধিকারী একজন বাঙালি; যিনি ফকির লালনলালন সাঁইলালন শাহমহাত্মা লালন ইত্যাদি নামেও পরিচিত।

লালন ফকির এর জীবনী

লালন ফকির ছিলেন ভারতীয় উপমহাদেশের সবচেয়ে প্রভাবশালী আধ্যাত্মিক সাধকদের মধ্যে অন্যতম। তাঁর জন্ম ১৭৭৪ খ্রিস্টাব্দে এবং মৃত্যু ১৮৯০ খ্রিস্টাব্দে। তিনি ছিলেন একাধারে সাধক, দার্শনিক, মানবতাবাদী, অসংখ্য গানের গীতিকার, সুরকার ও গায়ক। তথ্যানুযায়ী তিনি ছিলেন হিন্দু বাঙালি। কথিত আছে, তীর্থভ্রমণে গিয়ে তিনি গুটি-বসন্তে আক্রান্ত হন এবং সঙ্গীসাথিরা তাঁকে ফেলে পরিত্যাগ করে চলে যান। পরে এক মুসলিম পরিবারের স্নেহ-পরিচর্যায় সুস্থ হয়ে ওঠেন। শোনা যায় তাঁর প্রায় দশ হাজারের বেশি শিষ্য ছিল। লালনের সংগীত-ধর্ম-দর্শন নিয়ে দেশ-বিদেশে নানা গবেষণা হয়েছে এবং এখনও হচ্ছে। লালনের গান ‘লালনগীতি’ নামে পরিচিত। তিনি প্রায় ছ-হাজার গান বেঁধেছিলেন। তিনি মুখে মুখে গান রচনা করতেন এবং তার,সুর দিতেন। বাংলার বাউলগানের তিনি অন্যতম শ্রেষ্ঠ সাধক।

এটিও পড়ুন – সুকুমার রায় এর জীবন। Sukumar Ray

লালন ফকির সম্পর্কিত কিছু প্রশ্ন উত্তরঃ

  • ‘ফকির’ কথার অর্থ কী ?
    উত্তরঃ ফকির কথার অর্থ হল নিঃস্ব।
  • লালনের গানের মধ্যে কোন ধরনের কাব্যিক রস পাওয়া যায় ?
    উত্তরঃ লালনের গানের মধ্যে আত্মসন্ধানমূলক আধ্যাত্মিক কাব্যরস পাওয়া যায়।
  • লালন ফকিরের গানকে কী বলা হয় ?
    উত্তর: লালন ফকিরের গানকে ‘লালনগীতি’ বলা হয়।
  •  কীসের ভেদ কেউ জানে না ?
    উত্তরঃ স্বর্গপুরে কে আছেন তার ভেদ কেউ জানে না।
  • পৃথিবী অহর্নিশি ঘোরার ফলে কী হচ্ছে?
    উত্তরঃ পৃথিবী অহর্নিশি ঘোরার ফলে দিনরাত হচ্ছে।
  • লালন ফকির ছাড়া আরও দুজন বাউল গানের গায়কের নাম করো।
    উত্তরঃ দুজন বিখ্যাত বাউল গায়ক হলেন—পূর্ণদাস বাউল ও গোষ্ঠগোপাল দাস।