সুনীল ছেত্রীঃ-একজন ভারতীয় পেশাদার ফুটবল খেলোয়াড়। তিনি বর্তমানে ভারতের পেশাদার ফুটবল লীগের শীর্ষ স্তর ইন্ডিয়ান সুপার লিগের ক্লাব বেঙ্গালুরু এবং ভারত জাতীয় দলের হয়ে আক্রমণভাগের খেলোয়াড় হিসেবে খেলার পাশাপাশি ভারত জাতীয় দলের অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করছেন। তিনি মূলত কেন্দ্রীয় আক্রমণভাগের খেলোয়াড় হিসেবে খেললেও মাঝেমধ্যে বাম পার্শ্বীয় আক্রমণভাগের খেলোয়াড় এবং দ্বিতীয় আক্রমণভাগের খেলোয়াড় হিসেবে খেলেন।২০০১–০২ মৌসুমে, ভারতীয় ফুটবল ক্লাব সিটির যুব পর্যায়ের হয়ে খেলার মাধ্যমে সুনীল ফুটবল জগতে প্রবেশ করেছেন এবং এই দলের হয়ে খেলার মাধ্যমেই তিনি ফুটবল খেলায় বিকশিত হয়েছেন।

সুনীল ছেত্রী গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ঃ-(জন্ম: ৩ আগস্ট ১৯৮৪) মোহনবাগানের হয়ে তিন মৌসুমে ১৮ ম্যাচে ৮টি গোল করার পর ২০০৫-০৬ সালে মৌসুমে তিনি জেসিটিতে যোগদান করেছেন। জেসিটিতে তিন মৌসুম অতিবাহিত করার পর ইস্টবেঙ্গলের সাথে চুক্তি স্বাক্ষর করেছেন, যেখানে তিনি ১৪ ম্যাচে ৯টি গোল করেছেন।(তার বাবার নাম কে বি ছেত্রী এবং তার মায়ের নাম সুশীলা ছেত্রী)তার বাবা ভারতীয় সেনাবাহিনীর হয়ে ফুটবল খেলেছেন, অন্যদিকে তার মা এবং যমজ বোন নেপাল মহিলা ফুটবল দলের হয়ে খেলেছেন।

২০০৫ সালের ১২ই জুন তারিখে, মাত্র ২০ বছর, ১০ মাস ও ৯ দিন বয়সে, ডান পায়ে ফুটবল খেলায় পারদর্শী সুনীল পাকিস্তানের বিরুদ্ধে অনুষ্ঠিত প্রীতি ম্যাচে অংশগ্রহণ করার মাধ্যমে আন্তর্জাতিক ফুটবলে ভারতের হয়ে অভিষেক করেছেন,৫ ফিট ৭ ইঞ্চির ছেলেটা আজ ভারতের অধিনায়ক, দেশের সর্বোচ্চ গোলদাতা।জাতীয় দলের হয়ে অভিষেক ম্যাচেই ভারতের জার্সি গায়ে প্রথম গোলটি করেছেন;[৮] ম্যাচের ৬৫তম মিনিটে ভারতের প্রথম গোলটি করার মাধ্যমে তিনি আন্তর্জাতিক ফুটবলে তার প্রথম গোলটি করেছেন। ভারতের হয়ে অভিষেকের বছরে সুনীল সর্বমোট ৫ ম্যাচে ১টি গোল করেছেন।
২০১১ সালের ১৩ই নভেম্বর তারিখে ভারতের গুয়াহাটির ইন্দিরা গান্ধী অ্যাথলেটিক স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত মালয়েশিয়ার বিরুদ্ধে ম্যাচে অংশগ্রহণ করার মাধ্যমে তিনি ভারতের জার্সি গায়ে তার ৫০তম ম্যাচে খেলেছেন, ম্যাচটি ভারত ১–১ গোলে ড্র করেছিল,যেখানে তিনি ৯০ মিনিট খেলেছিলেন।২০১৮ সালের ১লা জুন তারিখে সুনীল তার খেলোয়াড়ি জীবনে ১০০তম ম্যাচটি অংশগ্রহণ করেছেন,তাইওয়ানের বিরুদ্ধে ভারতের মুম্বইয়ে অনুষ্ঠিত উক্ত ম্যাচটি ভারত ৫-০ গোলের ব্যবধানে জয়লাভ করেছিল, যেখানে তিনি হ্যাট্রিক করেছিলেন।