আর্যভট্ট (Aryabhata) (৪৭৬ –৫৫০) ছিলেন সবচেয়ে বিখ্যাত প্রাচীন ভারতের এক গণিতবিদ । আর্যভট্ট নামে ভারতের প্রথম কৃত্রিম উপগ্রহের নাম রাখা হয়। আর্যভট্ট (Aryabhata) এর আর্যভটিয়া, গণিত এবং জ্যোতির্বিদ্যার একটি সংমিশ্রণ, ভারতীয় গণিতের সাহিত্যে ব্যাপকভাবে উল্লেখ করা হয়েছিল এবং আধুনিক যুগেও টিকে আছে। এর গাণিতিক অংশ আর্যভটিয়া কভার পাটিগণিত, বীজগণিত, প্লেন ত্রিকোণমিতি, এবং গোলাকার ত্রিকোণমিতি ইত্যাদি।

Aryabhata

আর্যভট্ট (Aryabhata) এর জন্ম পরিচয় 

আর্যভট্টের কাজ থেকে তার জন্মসাল সম্পর্কে কিছু তথ্য পাওয়া গেলেও তার জন্মস্থানের বিশেষ কোন তথ্য পাওয়া যায়নি। আর্যভট্টের জন্ম হয়েছিল অশ্মকা নামের একটি জায়গায়। প্রাচীন বৌদ্ধ ও হিন্দু ঐতিহ্যে, এই স্থানটিকে দক্ষিণ গুজরাট এবং উত্তর মহারাষ্ট্রের আশেপাশে নর্মদা ও গোদাবরী নদীর মধ্যবর্তী স্থান হিসেবে চিহ্নিত করা হয়।

আর্যভট্ট (Aryabhata) এর শিক্ষাঃ

তিনি কুসুমপুরায়ই বসবাস করতেন । এই স্থানকে পাটালিপুত্র নগরী অভিহিত করেছেন।উচ্চশিক্ষার জন্য কুসুমপুরায় গিয়েছিলেন।  তিনি কুসুমপুরের আর্যভ নামে খ্যাত ছিলেন। তিনি তার বেশিরভাগ কাজ নালন্দা বিশ্ববিদ্যালয়ে করেছেন। স্নাতক শেষ করে বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষক হিসেবে যোগ দেন। নালন্দা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান হিসেবে আর্যভট্ট দায়িত্ব পালন করেছিলেন।

আর্যভট্ট (Aryabhata) এর মুখ্য অবদানঃ

ভারতীয় গণিতের ইতিহাসে স্বর্ণযুগ আর্যভট্টের হাত ধরেই শুরু হয় । আর্যভট্টের জ্যোতিষশাস্ত্র এবং জ্যোতির্বিদ্যা সংক্রান্ত বিভিন্ন কাজ দুটি প্রধান গ্রন্থে সংকলিত হয়েছে । এর মাঝে ‘আর্যভট্টীয়’ একটি, যেটি উদ্ধার করা গিয়েছে । এবং অন্যটি হল ‘আর্য-সিদ্ধান্ত’। আর্য-সিদ্ধান্তের কোনো পাণ্ডুলিপি পাওয়া যায় নি, তবে ব্রহ্মহিরা, ব্রহ্মগুপ্ত এবং প্রথম ভাস্করের কাজে এর উল্লেখ পাওয়া যায়। তার রচনা করা গ্রন্থ হল পদবাচ্যের আকারে। ২৩ বছর বয়সে তিনি এই গ্রন্থটি সংকলন করেন। তাছাড়া সে সময়কার জনপ্রিয় জ্যোতিষচর্চার প্রয়োজনীয় ৩৩টি গাণিতিক প্রক্রিয়ার বর্ণনা রয়েছে এবং তিনি ভারতবর্ষে শূন্যের প্রচলন করেন।

1 Comment

    […] আর্যভট্ট এর জীবনী | Aryabhata Mathematician […]

Comments are closed.